ওপার বাংলা
পশ্চিমবঙ্গে কবি রবীন্দ্রনাথের মূর্তিতে মদ ঢেলে স্নান করাল দুষ্কৃতিরা, নিন্দার ঝড়
কাগজ ডেস্ক :
Published : Friday, 6 October, 2017 at 6:18 PM
পশ্চিমবঙ্গে কবি রবীন্দ্রনাথের মূর্তিতে মদ ঢেলে স্নান করাল দুষ্কৃতিরা, নিন্দার ঝড়কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের মূর্তিতে মদ ঢেলে দেওয়া হয়েছে পশ্চিমবঙ্গের আলিপুরদুয়ার শহরে! এ নিয়ে গোটা পশ্চিমবঙ্গ জুড়ে ব্যাপক তোলপাড় চলছে, নিন্দার ঝড় বয়ে যাচ্ছে। শহরের সংস্কৃতি কালিমালিপ্ত হয়েছে বলে সরব হয়েছেন আলিপুরদুয়ারের বিশিষ্টরা। অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারের দাবিও উঠেছে নানা মহল থেকে। তবে এখনও বিষয়টি নিয়ে পুলিশে কোনও অভিযোগ দায়ের হয়নি। এদিকে বিষয়টি নিয়ে মুখ খুলতে চাননি জেলার পুলিশ সুপার আভারু রবীন্দ্রনাথ। শুধু জানিয়েছেন, “আমাদের কাছে এই ধরনের কোনও অভিযোগ জমা পড়েনি। আমরা বিষয়টি খতিয়ে দেখব।”
 আলিপুরদুয়ার শহরের মাধবমোড়ে বসানো রয়েছে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের আবক্ষ মূর্তি। অভিযোগ, মঙ্গলবার বিসর্জনের শোভাযাত্রার সময় সেখানে কার্যত বেলেল্লাপনা করে কিছু মদ্যপ যুবক। কবিগুরুর মূর্তিতে এলোপাথাড়ি কিল-চড়-ঘুসি চলতে থাকে। মূর্তির বিভিন্ন অংশ ভাঙার চেষ্টা হয় বলেও অভিযোগ। কিন্তু তার চেয়েও মারাত্মক অভিযোগ, মদ ঢেলে মূতিকে স্নান করানো হয়। তবে স্থানীয় কয়েকজন যুবক ও কিশোর এই ঘটনার প্রতিবাদ করলে ওই মত্ত যুবকরা পালিয়ে যায়।
এদিকে এই ঘটনার একটি ছবি সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। তারপরই তীব্র সমালোচনা শুরু হয় নানা মহলে। আলিপুরদুয়ার অভিভাবক মঞ্চের সম্পাদক ল্যারি বোস বলেন, “মঙ্গলবার রাতেই ঘটনার সময় কিছু স্থানীয় যুবক আমাকে ফোন করে। আমি তাদের প্রতিবাদ করতে বলি। প্রতিবাদ করায় ওই মত্ত যুবকের দলটি পালিয়ে যায়।” আর এই ঘটনার ছবি তুলেছেন, নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এরকম এক ব্যক্তি বলেন, “মঙ্গলবার রাত ১০টা নাগাদ ঘটে এই ঘটনা। সেই সময় ওই এলাকায় কোনও বিসর্জনের শোভাযাত্রা ছিল না। চার—পাঁচ জন যুবকের একটি দল কবিগুরুর মূর্তির উপর হামলা চালায়। আমরা শহরের বিশিষ্টদের কয়েকজনকে ফোনও করি। আমরা তাড়া করেও ওই মত্ত যুবকদের ধরতে পারিনি।”
এদিকে বিভিন্ন সূত্রে খবর মিলেছে, আলিপুরদুয়ারের তপসিখাতায় অবস্থিত পাওয়ার গ্রিড কর্পোরেশনে কর্মরত যুবকরা এই অপকর্ম করেছে। ওই যুবকরা পাঞ্জাব ও অন্ধ্রপ্রদেশের বাসিন্দা। কর্মসূত্রে তারা আলিপুরদুয়ারে থাকে। তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে এই প্রতিবেদকের কাছে ক্ষমাও চেয়ে নিয়েছে। ঘটনায় আলিপুরদুয়ারের বিশিষ্ট শিক্ষক কনৌজবল্লভ গোস্বামী বলেন, “শহরে বিভিন্ন মনীষীর মূর্তিগুলি অসংরক্ষিত খোলা অবস্থায় রাখা হয়েছে। যা যথেষ্ট দৃষ্টিকটু। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের মূর্তিতে হামলাকারীদের শাস্তি হওয়া দরকার।”




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : gramerka@gmail.com, editor@gramerkagoj.com
Design and Developed by i2soft