দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
আট লাখ টাকা হাতিয়ে বিদেশ পাঠানোর নামে প্রতারণা
শিমুল ভুইয়া :
Published : Thursday, 7 December, 2017 at 5:17 AM
আট লাখ টাকা হাতিয়ে বিদেশ পাঠানোর নামে প্রতারণা যশোরে এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে অবৈধভাবে বিদেশে মানব পাচার ও টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। বিদেশ পাঠানোর নামে নানা প্রলোভনে পথে বসাচ্ছেন অনেককে। আতœসাতের টাকা ফেরত না দিয়ে ভাড়াটে সন্ত্রাসীদের দিয়ে নানা অত্যাচার করছেন। বাধ্য হয়ে ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে স্থানীয় ইউয়িন পরিষদে অভিযোগ করেছেন ভূক্তভোগীরা।
যশোরের গাইদঘাট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক মহাদেব মন্ডল ওই এলাকার গোবিন্দ মন্ডলের ছেলে ও তার ভগ্নিপতি মাগুরা জেলার শালিখা উপজেলার তালখড়ি গ্রামের উপান মন্ডল ও উপানের ভাই দেবু মন্ডলকে সাথে নিয়ে একটি সিন্ডিকেট তৈরী করেছেন বলে অভিযোগে প্রকাশ।
অভিযোগে বলা হয়েছে, বাঘারপাড়া উপজেলার ছোটখুদড়া গ্রামের মৃত কুমারেশ চন্দ্র রায়ের ছেলে তাপস কুমার রায় ওই শিক্ষকের প্রতারণায় পড়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন। মহাদেব মন্ডল তার পূর্ব পরিচিত। একদিন ওই শিক্ষক তাকে জানান তার ভগ্নিপতি উপান মন্ডল ও তার ভাই দেবু মন্ডল সিঙ্গাপুরের একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে উচ্চপদে চাকরি করেন। শিক্ষক তার ভগ্নিপতি উপান মন্ডলের মাধ্যমে সিঙ্গাপুরে উচ্চ বেতনে চাকরির প্রস্তাব দেন এবং তাপস তা গ্রহন করেন। এজন্য তাপসের কাছে নগদ ৪ লাখ টাকা খরচ দাবি করেন ওই শিক্ষক। পরে তাপস ব্র্যাক ব্যাংক থেকে ৩ লাখ টাকা লোন নিয়ে এবং তার পৈত্রিক জমি থেকে মেহগনি গাছ বিক্রি করে ২০১৫ সালের ৩১ জানুয়ারি ৪ লাখ টাকা প্রদান করেন। এরপর ৯ ফেব্রুয়ারি তাপসকে সিঙ্গাপুরে নিয়ে যায়। একটি কোম্পানিতে কাজও দেয়া হয়। কিন্তু ১১ মাস পর তাপসকে অবৈধ অনুপ্রবেশের দায়ে দেশে পাঠিয়ে দেয় ওই কোম্পানি। দেশে আসার পর শিক্ষক মহাদেব মন্ডল ও উপান মন্ডল বৈধপথে চাকরি দেয়ার নামে আরও চার লাখ টাকা দাবি করেন। সে সময় তাপস আবারও ব্র্যাক থেকে ৩ লাখ এবং আত্মীয়দের কাছ থেকে ৮২ হাজার টাকা নিয়ে মোট ৩ লাখ ৮২ হাজার টাকা তার হাতে দেন। পরে আবারও ২০১৬ সালের ৫ ডিসেম্বর সিঙ্গাপুরে পাঠানো হয় তাপসকে। সেখানে ২৬ দিন কাজ করার পর আবারও বাধা আসে। কোম্পানির লোকজন জানান তাপসের জন্য কোন ওয়ার্ক পারমিট আবেদন করা হয়নি। তখন তাপস সিঙ্গাপুরে শ্রম মন্ত্রণালয়ে খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন তাকে ফের অবৈধভাবে পাঠানো হয়েছে। এরপর তাপস ওই কোম্পানির মালিকের সাথে কথা বললে মালিক বলেন, তার ওয়ার্ক পারমিটের জন্য এজেন্ট কোন টাকা দেয়নি। তাই ওয়ার্ক পারমিটের আবেদন করা হয়নি। এরপর তাপস টাকা আতœসাতকারীদের কাছে টাকা ফেরত চাইলে সিঙ্গাপুরেই তাকে মাস্তান দিয়ে হত্যা চেষ্টা চালায়। বাধ্য হয়ে গত ৩১ জানুয়ারি দেশে ফিরে আসেন তাপস। এরপর শিক্ষক মহাদেব মন্ডলের কাছে জানতে চাইলে নানা তালবাহানা করেন। একপর্যায় তাকে তালখড়ি উপানের বাড়িতে নিয়ে তাপসের উপর নির্যাতন চালায়।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : gramerka@gmail.com, editor@gramerkagoj.com
Design and Developed by i2soft