দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
আজ কেশবপুর হানাদারমুক্ত দিবস
কেশবপুর (যশোর) প্রতিনিধি :
Published : Thursday, 7 December, 2017 at 5:17 AM
আজ কেশবপুর হানাদারমুক্ত দিবসআজ ৭ ডিসেম্বর। কেশবপুর হানাদারমুক্ত দিবস। ১৯৭১ সালের এই দিনে আব্দুল হামিদ গাজী, চিন্ময় মিত্র, আব্দুল ফকিরসহ মুক্তিযোদ্ধারা রাইফেলের বাটে লাল সবুজের পতাকা বেঁধে মিছিল সহকারে কেশবপুরে ফিরে আসেন। মুক্তিযোদ্ধাদের আগমনের খবর পেয়ে ৭ ডিসেম্বর ভোরে কেশবপুর শহরের বালিকা বিদ্যালয়ে অবস্থানরত রাজাকার ও পাকিস্তান সেনাবাহিনী ক্যাম্প ছেড়ে কেশবপুর সার্বজনীন কালী মন্দিরের পাশের ঝোঁপে অস্ত্র ফেলে পাঁজিয়া, সুফলাকাটি হয়ে খুলনার দিকে পালিয়ে যায়। যাওয়ার সময় রাজাকার ও পাকিস্তানী বাহিনীর সদস্যরা কানাইডাঙ্গার শেখ লুৎফর রহমান, সুফলাকাটির গৃজানাথ চৌধুরী, তার ছেলে মুক্তি শঙ্কর চৌধুরীসহ কয়েকজন মুক্তিকামী জনগণকে হত্যা করে। এই দিন মুক্তিযোদ্ধারা জয় বাংলা শ্লোগান দিয়ে কেশবপুর থানায় প্রবেশ করেন। এ সময় থানার পতাকা স্ট্যান্ড থেকে মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হামিদ গাজী পাকিস্তানের পতাকা নামিয়ে পুড়িয়ে ফেলে ওই স্ট্যান্ডে বাংলাদেশের মানচিত্র সমৃদ্ধ লাল সবুজের পতাকা উত্তোলন করেন। একইসাথে কেশবপুরকে হানাদার মুক্ত ঘোষণা করা হয়। এ দিন কেশবপুরের প্রবেশ পথে ভোগতী কালারবাসা মোড়ে মুক্তিযোদ্ধাদের ফুল দিয়ে অভ্যর্থনা জানান আওয়ামী লীগ নেতা ডাক্তার গোলাম রব্বানী, ডাক্তার রওশন আলী, আনোয়ার হোসেন বিশ্বাস প্রমুখ।
মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার মোহাম্মদ আলী বলেন, কেশবপুর ছিল রাজাকারদের শক্ত ঘাঁটি। পাকিস্তান সেনা ও রাজাকাররা কেশবপুরের চিংড়া, ত্রিমোহিনী ও কেশবপুর পাইলট বালিকা বিদ্যালয়ে ক্যাম্প স্থাপন করে নিরীহ বাঙালীদের এখানে ধরে এনে টর্চার সেলে নির্যাতন শেষে মঙ্গলকোট ব্রিজের মাথায় নিয়ে জবাই করে হত্যা করে নদীতে ফেলে দিত।
অপরদিকে ৬ ডিসেম্বর কেশবপুর হানাদারমুক্ত দিবস উপলক্ষে মুক্তিযোদ্ধারা বুধবার দুপুরে কেশবপুর মুক্তিযোদ্ধা চেতনা বাস্তবায়ন মঞ্চে এক আলোচনা সভার আয়োজন করেন। যুদ্ধকালীন কমান্ডার কাজী রফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তৃতা করেন সাবেক কমান্ডার মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী, সাবেক ডেপুটি কমান্ডার কাইয়ুম উদ্দিন, মুক্তিযোদ্ধা নূরুল ইসলাম খোকন, এসএম তৌহিদুজ্জামান, মনিমোহন ধর, ইমান আলী, আমির হোসেন, সামছুর রহমান, আদিত্য কুমার, নিমাই চন্দ্র প্রমুখ।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : gramerka@gmail.com, editor@gramerkagoj.com
Design and Developed by i2soft