শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮
আক্কেল চাচার চিঠি (আঞ্চলিক ভাষায় লেখা)
তত্য কনতে কনে যাচ্চে সিডা জানা জরুলী
Published : Monday, 29 January, 2018 at 12:52 AM
তত্য কনতে কনে যাচ্চে সিডা জানা জরুলীআমরা নানান জাগায় নিজিগের সম্পক্কে তত্য দিই। যিরাম মুবালির সিম কিনতি গেলি, ব্যাংক বা এনজোত্তে লোন তুলতি গেলি, ব্যাংক,ফেসবুক বা ই-মেইলের একাউন খুলতি গেলি, চাকরীর জন্যি আবেদন কল্লি,বাড়ী ভাড়া নিতি গেলি ইরাম নানা জাগায় নিজিগের নাম ঠিকানা মুবাল নম্বর ই মেইলসহ নানা তত্য দিই। সেই দিয়া তত্য কতটুকু নিরাপদে থাকে সিডা আমরা কেউ ভাইবে  দেকিনে। কিন্তুক এই তত্য দিয়ে মানুষ জন হতি পারে নানা হয়রানির শিকার। একজন মানুষ কোন তত্যডা দেবে বা মানসির কাছে  কোন কোন তত্য চাওয়া যায়, সেই বোদ তৈরি না হওয়ায় ব্যক্তিগত তত্যের গোপনীয়তা হুমকির মুকি রয়েছে বিলে মনে কচ্চেন সুমাজিক ও ডিজিটাল নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞরা। পিপারে পড়লাম তারা কইয়েচে, ডিজিটাল যুগি বিভিন্ন জাগায় তত্য চাওয়া হয়। কিন্তুক সিডা সুরক্ষিত থাকপে কিনা, তা নিচ্চিত করে জানানো হয় না। যে কোনও জাগায় ভুটার কাড, ছবি,দাক্তারী রিপোর্ট, ব্লাড গ্রুপ, ফোন নম্বর, ভাড়াটে তত্য ফরমের নামে যাবতীয় তত্য দিয়া এবং সিডা রক্ষণাবেক্ষণ বিষায়ে জনগোনোর কাচে কোনও তত্য না থাকায় মানুষ হুমকির মুকি পড়তি পারেন বিলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা। শুনা যাচ্চে ২০১৫ সালের শেষ দিকি ঢাকার পুলিশ বাড়ি বাড়ি যাইয়ে ফরম পূরণের মাদ্যমে রাজধানীতি বাস করা নাগরিকগের তত্য সংগ্রহ করিল। অনুসন্দানে নাই বারোয় আইয়েচে ভাড়াটেগের তত্য গোপন রাখার কতা দিলিও পুলিশ ডাটাবেজ বানানোর জন্যি সেই কাজডা বাইরির লোক মানে ব্যবসায়ীগের দিয়ে করাচ্ছে। ইরামকি নাগরিকগের তত্য সংরক্ষণের জন্যি তৈরি করা ডিএমপির সিটিজেন ইনফরমেশন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের সারভারের পাসওয়াডও তাগের হাতে দিয়ে দেচে। পিরাই শুনা যায় ম্যালা তত্য হলি কোন কুম্পানীর কাচে ডাটাবেজ বানাতি তত্য দিয়ে দিয়া হয়। এর পাশাপাশি  ফেসবুকির মদ্দি দিয়ে কিডা ককন কনে কি কত্তেচে তা দিয়ে সুশ্যাল ইঞ্জিয়ারিং কইরে হ্যাকাররা পাসওয়াড যাইনে যাচ্চে। আমাগের মতো মুক্কুসুক্কু লোকের কতা বাদ দিলাম শিক্ষিতগের মদ্দিও এই সচেতনতা নেই কলিই চলে। ইডার ফল কী হতি পারে, সিডাও তারা জানেন না। গোপনীয়তা ভাইঙ্গে কোন তত্যগুলো কিডা কনে  দেচ্ছে, সিডাও ভাববার বিষয়। নানান চাকরির আবেদন পত্তর, সিম কিনা, একাউন খুলা, ইরাম হাজার জাগায় দিয়া তত্য কনে যাচ্চে সিডা আমরা কেউ খিয়াল করিনে। কিন্তুক এই তত্য নিয়ে খারাপ মানুষ নানা খাইন বাদায়ে দিতি পারে। একজনের নাম ঠিকানা ভুটার কাড,ছবি দিয়ে সিম বা একাউন খুলে চান্দাবাজী করা, হয়রানী করা,হক না হক কাজে জড়ায় দিয়া সহ মানুসরে পতি নিয়ত বিপদে  ফেলায় দিতি পারে। তাই স¹লির উচিত কোন জাগায় তত্য দিয়ার আগে ভাইবে চিন্তে তত্য দিয়া। যে তত্য য্যানে দিচ্চি স্যানে যেন তত্য নিরাপদ থাকে।

শব্দার্থ : সম্পক্কে=সম্পর্কে,তত্য=তথ্য,মুবাল=মোবাইল,এনজোত্তে=এনজিও থেকে, একাউন = একাউন্ট,মুকি=মুখে,ভুটার কাড= জাতীয় পরিচয় পত্র,পিরায়=প্রায়ই,খাইন= দূর্ভোগ




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : gramerka@gmail.com, editor@gramerkagoj.com
Design and Developed by i2soft