সোমবার, ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮
জাতীয়
খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিএনপির অবস্থান কর্মসূচি
কাগজ ডেস্ক :
Published : Tuesday, 13 February, 2018 at 8:44 PM
খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিএনপির অবস্থান কর্মসূচিবিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহার ও তার মুক্তির দাবিতে পূর্বঘোষিত অবস্থান কর্মসূচি পালন করছে দলটি। রাজধানীর নয়াপল্টনে দলটির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে আজ মঙ্গলবার সকাল ১১টায় অবস্থান কর্মসূচি শুরু হয়।
এর আগে কয়েক বার অবস্থান কর্মসূচির ভেন্যুর পরিবর্তন হয়। প্রথমে প্রেসক্লাব ও পরে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটে অবস্থান কর্মসূচি হওয়ার কথা থাকলেও পুলিশের অনুমতি না পাওয়ায় তা এখন নয়াপল্টনে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সকালে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, বিএনপির নেতাকর্মীরা সকাল ১১টা থেকে ১২টা পর্যন্ত নয়াপল্টনে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে অবস্থান করবে।
অবস্থান কর্মসূচিতে যোগ দিয়েছেন বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মীরা।
তৃতীয়বারের মতো বদলালো ঢাকায় বিএনপিসহ ২০ দলীয় জোটের এই অবস্থান কর্মসূচির স্থান। শুরুতে এই কর্মসূচি পালনের জন্য জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনের স্থানের কথা ঘোষণা করা হয়। তবে গত রাতে এক মুঠোফোন বার্তায় দলটির পক্ষ থেকে জানানো হয় স্থান পরিবর্তনের কথা। পরিবর্তিত স্থান ছিল রাজধানীর রমনার ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন।
তবে সকাল থেকেই ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন, মৎস্য ভবন, শিল্পকলা একাডেমি এলাকায় সতর্ক অবস্থান নেয় পুলিশ। প্রস্তুত রাখা হয় প্রিজনভ্যানও। ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনের কর্তব্যরত নিরাপত্তারক্ষীরা জানান, সেখানে এ ধরনের কর্মসূচি পালনের কথা তাঁরা জানেন না। এ রকম কিছুর জন্য ইনস্টিটিউশন খুলে দিতে তাঁদের নির্দেশ দেওয়া হয়নি।
এ বিষয়ে পুলিশের একাধিক কর্মকর্তা বলেন, বিএনপি তাদের কাছে অবস্থান কর্মসূচি পালনের অনুমতি চেয়েছে। পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, বিএনপি শান্তিপূর্ণভাবে কর্মসূচি পালন করতে পারে। তবে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন কর্তৃপক্ষ ভেতরে অবস্থানের অনুমতি দেবে কি না, সেটা তাদের বিষয়।
পুলিশের শাহবাগ থানার প্যাট্রল ইন্সপেক্টর বাশার বলেন, ‘আমাদের দায়িত্ব জনগণের জানমালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা। আমরা সেটি করব। কেউ যাতে কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা করতে না পারে, সেটি নিশ্চিত করা হবে।’
গত ৮ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার দুপুরে পুরান ঢাকার বকশীবাজারে স্থাপিত বিশেষ জজ আদালতের বিচারক ড. মো. আখতারুজ্জামান জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় রায় ঘোষণা করেন। রায়ে বিএনপির চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছর এবং সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান, মাগুরার সাবেক সংসদ সদস্য (এমপি) কাজী সলিমুল হক কামাল, ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদ, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সাবেক সচিব কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী ও প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ভাগ্নে মমিনুর রহমানকে ১০ বছর করে কারাদণ্ডাদেশ এবং দুই কোটি ১০ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : gramerka@gmail.com, editor@gramerkagoj.com
Design and Developed by i2soft