বৃহস্পতিবার, ১২ ডিসেম্বর, ২০১৯
আক্কেল চাচার চিঠি (আঞ্চলিক ভাষায় লেখা)
বাজেট তুমি কি বড্ড জানতি ইচ্চে করে ...
Published : Monday, 17 June, 2019 at 6:46 AM
পেত্তেক বচরের মাঝখানে আসলি বাজেট ঘোষনা করে সরকার। জেন ভারোন দিলি যিরাম তুলোরাশির মুক দিয়ে জেনের কতা বারোয় সিরাম অত্থমুন্ত্রীর মুক দিয়া পড়া বাজেট আসলে সরকারের দিয়া এক বচরের সুম্ভাব্য আয় ব্যয়’র হিসেব। ইডা কোন মুনিষিগের কতা না আমার মতো মুক্কু সুক্কু মানসির কতা। যিডা আসলে সুধিজনরা আমলে নাও নিতি পারেন। তেবে কুটি কালতে এট্টা জিনুস দেইকে আসতিচি বাজেটে কি আচে, কি নেই সিডা দেকাদেকি নেই বাজেট পড়া হলিই সরকার দলের লোক গণমুকি বাজেট কইয়ে তা নিয়ে মিছিল বাইরো করবে আর বিরোধীদল কবে ইডা বাজেট না বাজে। এতি গরীবির কোন স্বাত্ত রাকা হয়নি সব লাভ বড়লোকগের। হইয়ে ধইরে ইডাই দেইকে আসতিচি। আসলে বাজেটের মদ্দি কি আচে তা দেকা, পড়া আর বুজার লোকের সংখ্যা কত সিডা নিয়েই গবেষুণা হতি পারে। বাজেটের পর দশ বচর ধইরে কারা কি কইরেচে সিডা তলাশ কল্লি দেকা যাবে পেত্তেক বচরের ফল এক রকম। এর মদ্দি হুটোপাটা বাদায় দেচে বিড়ি সিকারেটে দাম আর মুবালি কতা কলি ট্যাকশো বাড়ানো নিয়ে। ফেসবুক গরম হইয়ে যাচ্চে এই দুডো জিনুস নিয়ে। প্যাটে ভাত নেই কোটে সিন্দুরির মতো দশা। কয়ডা ধান বেশী কিনা ছাড়া ধান চাইল নিয়ে কিচু হলো কিনা সিডা নিয়ে কারো মাতাব্যাতা নেই। এর মদ্দি দেকলাম ফেসবুকি এক ভাস্তি এট্টা লিকা ছাইড়েচে একন পেরেম পিরিত কল্লি মুবালয়ালাগের লাব আর ছ্যাক খালী সিকারেটয়ালাগের লাব। বাজেটে শুনলাম সুনার দাম কুমেচে আবার আজ পিপারে দেকলাম সুনার দাম বাইড়েচে ফ্যরাডা কি বুজলাম না। চা’র দুকানে এই নিয়েও চলচে তক্ক বিতক্ক। বেশীর ভাগ মানসির কতা বাজেটে যিডার দাম বাড়ানোর কতা কওয়া হয় সিডা চান রাত্তিরিত্তে অটো বাইড়ে যায় আর যিডার দাম কমে সিডা বাদের মাইয়ে জুসনার মতো আসি আসি কইরে ফাকি দিয়ে চইলে যায়। গিরাম গঞ্জে বেশীর ভাগ মানসির কতা বাজেট হচ্চে বড়লোকগের জন্যি, গরীবগুরো লোক যারা তাগের জোনে না গেলি প্যাটে ভাত নেই। বাজেট নিয়ে ভাবার সুমায়ডা কনে ? মুক্কু সুক্কু মানুস হিসেবে এট্টা জিনুস শুইনে আকাটা হইয়ে যাচ্ছি। শুনতিচি এই বাজেটে সে সব উন্নয়ন কাজের কতা হচ্চে তা নাই বেশীর ভাগই লোন তুইলে করা হবে। সেই লোন নাই আমাগের ঘাড়েই পড়বে শোধ দিয়ার জন্যি। দেশের পেত্তেক জনগণের ভাগে শুনতিচি ৬৭ হাজার টাকা কইরে পড়বে। খালাম না ছুলাম না লাগলো ভালোর মতো দশা আমাগের। আল্লায় জানে কতাডা সত্যি না মিত্যে। 



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : gramerka@gmail.com, editor@gramerkagoj.com
Design and Developed by i2soft